Press "Enter" to skip to content

বিজিবির নির্যাতনে ৩দিন চিকিৎসা শেষে রোকেয়াকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ

বেনাপোল প্রতিনিধি
বেনাপোল পোর্ট থানার বড়আঁচড়া গ্রামের রোকেয়াকে বিজিবির নির্যাতনে তিনিদিন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে আজ মিথ্য মামলায় যশোর কোর্টে হাজিরা দেওয়ার জন্য পাঠানো হয়েছে ।
রোকেয়ার পরিবার সুত্র জানায় বিজিবি রোকেয়াকে বাড়ি থেকে ডেকে বেনাপোল ক্যাম্পে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তাকে বিভিন্ন ভাবে জেরা করায় এক পর্যায় রোকেয়া মাথা ঘুরে ক্যাম্পের শিড়ির পর থেকে মাটিতে পড়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এবং পায়ে আঘাত পায়। তাৎক্ষনিক সেখান থেকে বিজিবি রোকেয়াকে বেনাপোল পোর্ট থানায় মিথ্যা মামলা দিয়ে ১০ বোতল ফেনসিডিল দিয়ে চালান দেয়।
রোকেয়ার সাথে নাভারন হাসপাতালে আজ সকালে এ প্রসঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, তার বাড়ির সামনে দিয়ে চোরাকারবারিরা ভারত থেকে পন্য নিয়ে যাওয়ার সময় বিজিবি ধাওয়া করলে এক টুপলা কসমেটিক পন্য তার বাড়িতে ফেলে যায়। বাড়িতে চোরাকারবারিরা কসমেটিক পন্য ফেলে যাওয়ায় সে চোরাকারবারিদের গালাগালি করলে বিজিবি মনে করেন তাদের গাল দিচ্ছে । এ কারনে বিজিবি তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বেনাপোল ক্যাম্পে নিয়ে নানা ধরনের প্রশ্ন করতে থাকে।
এ ঘটনায় ঐদিন রোকেয়ার বড়আঁচড়া গ্রামের লোকজন বিজিবি ক্যাম্পে যেয়ে রোকেয়াকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধে করলে বিজিবি তাদের কথা না শুনে রোকেয়া কে ১০ বোতল ফেনসিডিল দিয়ে চালান করে দেয়।
বড়্আঁচড়া গ্রামের একটি সুত্র জানায় বড়আচড়া পোষ্ট দিয়ে আসলে যারা ফেনসিডিল আনে বিজিবি তাদের সাথে চুক্তি করে ফেনসিডিল পাচার করতে সহায়তা করে। সুত্র আরো জানায় ফেনসিডিল যদি সীমান্ত দিয়ে না আসে তহলে বেনাপোল পোর্ট থানার ভবারবেড়, কাগজপুকুর , দিঘিরপাড়, দুর্গাপুর কিভাবে ফেনসিডিল পাইকারি এবং খুচরা বেচাকেনা হয়।
তবে মাঝ মধ্যে দুই একটি ফেনসিডিলের চালান বিজিবি আটক করে। যা শুধু লোক দেখানো মাত্র । অথবা ।ঐ চালানের লোকদের সাথে তাদের চুক্তি থাকে না।

Share Button

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *