Press "Enter" to skip to content

জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ১৪ দলের জনসভা আগামী ২০১৯ সালের পূর্বে দেশে কোন জাতীয় নির্বাচন নয় : স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোঃ নাসিম

জি,এম মিঠন, নওগাঁ : ১৪ দলের সমন্বয়ক স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রী মোঃ নাসিম বলেছেন আগামী ২০১৯ সালের আগে দেশে কোন জাতীয় নির্বাচন নয়। সংবিধানের বিধি মেনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। অসাংবিধানিক কারও অধীনে নির্বাচন নয়। ওই নির্বাচনে অংশ গ্রহন করতে চাইলে বিএনপি’কে এখন থেকেই প্রস্তুতি নেয়ার আহবান জানান তিনি। ৫ জানুয়ারীর জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সঠিক বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সে সময় খালেদা জিয়াকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দিতে চাওয়া হয়েছিল। তারপরও তিনি নির্বাচনে অংশ করেনি। তাই সংবিধান অনুযায়ী সে সময় নির্বাচন অুনষ্ঠিত হয়েছে।
মন্ত্রী শনিবার বিকাল সাড়ে ৫ টায় নওগাঁ নওযোয়ান মাঠে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে নওগাঁ জেলা ১৪ দল আয়োজিত এক বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেছেন।
নওগাঁ জেলা ১৪ দলের সমন্বয়ক জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আব্দুল মালেক এমপি’র সভাপতিত্বে আয়োজিত এ জনসভায় ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারন সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী সিটির সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন, জাসদ ইনু’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন, সাম্যবাদি দলের পলিট ব্যুরোর সদস্য এম এ গণি, বাসদের আহবায়ক রেজাউর রশিদ খান, ন্যাপের সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট এনামুল হক, আজাদীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আতাউল্যা খান, জাতীয় সংসদের হুইপ শহিদুজ্জামান সরকার এমপি, নওগাঁ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি, ইসরাফিল আলম এমপি, ওয়ার্কাস পার্টি নওগাঁ জেলার সাধারন সম্পাদক শহিদ হাসান সিদ্দিকী স্বপন, জেলা মহিলালীগের সভানেত্রী শাহনাজ বেগম, জেলা আওয়ামী আইনজীবি পরিষদের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল বাকী, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহুরুল সিদ্দিকী মিলন, জেলা যুবলীগের আহবায়ক এ্যাড. খোদাদাদ খান পিটু, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নাছিম আহম্মেদ নাসিম, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাতিশা আলম এবং জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাহমানিয়া রিজভী বক্তব্য রাখেন।
১৪ দলের সমন্বয়ক মোঃ নাসিম বলেছেন ৫ জানুয়ারী’র নির্বাচন ছিল অত্যাবশ্যকীয়। ঐ নির্বাচন না হলে দেশে সামরিক আইন জারী করা হতো। কোন রাজনীতি, কোন গণতন্ত্র থাকতোনা। সেক্ষেত্রে ঐ নির্বাচন খুবই জরুরী ছিল।
ক্ষমতায় যাওয়ার নেশায় খালেদা জিয়ার নির্দেশে জামাত শিবিরের পরিকল্পনা অনুয়ায়ী দেশকে অস্থিতিশীল করতে দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটানো হয়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে অতি দ্রুততম সময়ের মধ্যে জঙ্গিবাদ দমন করতে সক্ষম হয়েছি। তাঁর ডাকে সারা দিয়ে ইতিমধ্যেই সারা দেশের মানুষ জঙ্গিবাদ আর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।
বর্তমান সরকার কর্ত্তৃক দেশের প্রভুত উন্নয়ন সাধিত হওয়া কথা উল্লেখ করে বলেন বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। গ্রামে গঞ্জে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। নির্বাচনী ওয়াদা মোতাবেক দেশের হত দরিদ্র মানুষদের মধ্যে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি কার্যক্রম চলছে। সবার জন্য বিনামুল্যে বই প্রদান করা হচ্ছে। শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হচ্ছে। দেশের মানুষ আজ খুবই শান্তিতে আছেন।

এই শান্তি এবং উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচনে পুনরায় আওয়ামীগকে সরকার গঠর করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে উল্লেখ করেন। এর আগে দুপুরে নওগাঁ জেলার পতœীতল্ াউপজেলা সদর নজিপুরে ২২ কোটি ৯৬ লাখ টাকা ব্যয়ে পতœীতলা মেডিক্যাল এ্যাসিষ্ট্যান্ট ট্রেনিং ভবন নির্মান কাজের উদ্বোধন করেন এবং পতœীতলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্স্রে বৈকালিক সেবার উদ্ধোধ:ন করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এম,এ মোহী পিএসসি, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জিয়াউল হক, রাজশাহী বিভাগের স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ আশিষ কুমার সাহা, সিভিল সার্জন ডাঃ একেএম মোজাহার হোসেন বুলবুল, ছলিম উদ্দীন তরফদার এমপি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Share Button
More from রাজশাহীর খবরMore posts in রাজশাহীর খবর »

Comments are closed.