Published On: Sun, Sep 25th, 2016

বিএনপি’র আন্দোলন চোরাবালিতে আটকে গেছে–ওবায়দুল কাদের

কবিরহাট প্রতিনিধি : সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির আন্দোলনের খবর নাই। এ বছর, না অই বছর! আন্দোলন হবে কোন বছর? কয় ঈদুল ফিতরের পর? কোরবানীর ঈদের পর দেখতে দেখতে পাঁচ বছর। বিএনপির আন্দোলন ভুলের চোরাবালিতে আটকে গেছে। বিএনপির আন্দোলনে মরা গাঙে আর জোয়ার আসবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
শনিবার বিকেল ৩টায় নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে আয়োজিত ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়ার আনিসুল হকের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বিএনপির কে উদ্দেশ্য করে বলেন, যথাসময় শেখ হাসিনা নির্বাচন দিবেন। নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহন করুন । আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে সবাই ঢাকা যাবেন। এবারের সম্মেলনে আমার পার্টির ঐতিহ্য ও প্রযুক্তির সমন্বয়ে নবীণ-প্রবীণের সংমিশ্রণে শেখ হাসিনা নতুন নেতৃত্ব উপহার দিবে।

তরুণদের উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী নোয়াখালী আঞ্চলিক ভাষায় বলেন, ‘আঙ্গো কাছে খবর আছে, তোরা কিছু কিছু ইয়াবার দিকে চলি গেছত্। তোরা ইয়াবা থেকে সরে আয়।’ না হলে উন্নয়ন করে লাভ নেই। ইয়াবা আজকে তরুণ সমাজকে ধবংস করে দিচ্ছে। তাই সবাই সর্বনাশা ইয়াবাকে না বলুন।

snapshot-11জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আনম সেলিমের সভাপতিত্বে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক তার বক্তব্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন ঢাকাকে পরিবর্তন করার জন্য, আমি সে দায়িত্ব পালন করছি। আমার সকল যোগ্যতাদিয়ে চেষ্টা করে যাবো ঢাকাকে পরিবর্তন করার জন্য। যারা আমার জন্য, এখান থেকে শত শত মানুষ গিয়ে ঢাকাতে একাকার হয়েছেন, আমার জন্য কাজ করেছেন। আপনারা আজকে আমাকে সম্মান দিচ্ছেন। আমার কাজের মাধ্যমে ইশআল্লাহ তা আমি প্রমাণ করবো। আমি দুইটি কথা বলতে চাই। আমি এই গ্রামের ছেলে। আমার এলাকার একসঙ্গে এত তরুণ আর পাবো কিনা জানি না। তাদের জন্য আমি শুধু এটুকু বলতে চাই। তোমরা বাবা মায়ের চোখের দিকে তাঁকাও, ওরা তোমাদের জন্য কষ্ট করছে। রাস্তায় দৌড়ানো, রাস্তায় হাঁটা জীবনের একটি সময় পর্যন্ত করে । কিন্তু সামনের দিকে তাঁকাও, সে তাঁকানো গ্রামের হাজার হাজার ছেলের মধ্যে দেখতে পাইনা। এ সময় যে বাবা কষ্ট করছে। আর ৪ বছর পর বাবা তোমাকে সে সার্পোট দিতে পারবে না। তোমাকে দাঁড়াতে হবে। সে দাঁড়ানোর সময় এখনি।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, নোয়াখালী-৪ এর সাংসদ ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী, সোনাইমুড়ী-চাটখিল আসনের সাংসদ এইচ এম ইব্রাহিম, বেগমগঞ্জ আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরণ, হাতিয়া আসনের সাংসদ আয়েশা ফেরদৌস আলী, ফেনী সদর আসনের সাংসদ নিজাম হাজারী, নোয়াখালী জেলা পরিষদের প্রশাসক ডা. জাফর উল্লাহ, জেলা-উপজেলা আওয়ামী, যুবলীগ, ছাত্রলীগ’সহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃত্ববৃন্দ।

Share Button

About the Author