Press "Enter" to skip to content

জমকালো আয়োজনে পর্দা নামলো রিও অলিম্পিকের

১২০ বছরের আধুনিক অলিম্পিকের আরও একটি আসরের সমাপ্তি ঘটলো। রিও অভিযান শেষে টোকিওর গভর্নরের হাতে অলিম্পিকের পতাকা তুলে দেওয়া হলো আনুষ্ঠানিকভাবে। এবারের অপেক্ষা ২০২০ সালের।

ব্রাজিলের মারাকানায় প্রায় দুই ঘণ্টার জমকালো সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে পর্দা নামলো ৩১তম এই আসরের। সোমবার (২২ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শুরু হয় অনুষ্ঠান।

লাতিন আমেরিকায় প্রথমবারের মতো এই বিশ্ব আসর বসে ব্রাজিলে। গত ৫ আগস্ট রিও ডি জেনিরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় গ্রেটেস্ট শো অন আর্থের।

সমাপনী অনুষ্ঠান বাড়তি গুরুত্ব পায় ফুটবলে ব্রাজিলের স্বর্ণ জয়ের জন্য। এছাড়া শেষ দিনের ইভেন্টগুলোসহ রিওতে মোট ২৮টি ক্রীড়ায় ৩০৬টি স্বর্ণের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বিশ্বের ২০৭টি দেশের মোট ১১ হাজারেরও বেশি অ্যাথলিট।

যার মধ্যে ছিল বাংলাদেশও। তবে সরাসরি বাংলাদেশ কিছুই না জিতলেও বাংলাদেশি বংশদ্ভুত মার্গারিটা মামুন জিতেছেন স্বর্ণ। ভারসাম্যের অসামান্য নিদর্শন আর দুর্দান্ত শারীরিক কলাকৌশল দেখিয়ে জেতা রিদমিক জিমন্যাস্টিক্সের সোনার পদকটি বাংলাদেশেরও হয়ে থাকলো।

পদক জয়ে যুক্তরাষ্ট্রের শ্রেষ্ঠত্বের মধ্য দিয়ে পর্দা নামলো রিও অলিম্পিক গেমসের। দ্বিতীয় এবং তৃতীয় হিসেবে রয়েছে চীন ও গ্রেট ব্রিটেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানের মঞ্চে হয়েছে, নাচ-গানের পাশাপাশি নানা প্রদর্শনী। যার মধ্য দিয়ে ব্রাজিলের সংস্কৃতি-ইতিহাস-ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়। সঙ্গে ছিল অ্যাথলিটদের প্যারেডও। আর এতেই মত্ত হয় সবাই।

রিও গেমসের অলিম্পিক মশাল নেভানোর আনুষ্ঠানিকতা শেষ এবার টানা চার বছরের অপেক্ষা! অপেক্ষা জাপানের টোকিও অলিম্পিকের জন্য। সূত্র: দৈনিক জনকণ্ঠ

Share Button

Comments are closed.