Press "Enter" to skip to content

‘দেশজ উৎপাদনের জিডিপি হবে ৭ শতাংশ’

স্টাফ রিপোর্টার, ডেইলী খবর: বিনিয়োগে গতি আসছে জানিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, এ বছর মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হবে ৭ শতাংশ। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমিতে (বিবিটিএ) আয়োজিত বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্স ২০১৫-এর দ্বিতীয় ব্যাচের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। গভর্নর বলেন, নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও খেলাপী ঋণের হার আমরা এক অংকে নামিয়ে আনতে পেরেছি। খেলাপী ঋণের বিপরীতে প্রভিশন কভারেজ ৯৫ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। ব্যাংকিং খাতে এখন কোনো তারল্য সংকট নেই। কলমানি রেট মাত্র ৩ থেকে ৪ শতাংশ। মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানির হার বাড়ছে। সুদহারের স্প্রেড কমে ৪ দশমিক ৭৭ শতাংশ হয়েছে। এই স্প্রেড ক্রমান্বয়ে কমছে। আমাদের বিনিময় হার দীর্ঘদিন ধরে স্থিতিশীল। মূল্যস্ফীতিও কমছে। বিনিয়োগে গতি আসছে। বিনিয়োগ বাড়লে প্রবৃদ্ধি বাড়বেই। তাই এ বছর আমাদের প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশে উন্নীত হবে, বলেন ড. আতিউর রহমান। তিনি বলেন, আমরা উৎপাদনশীল খাতে, বিশেষ করে এসএমই খাতে বিনিয়োগ আরো দ্রুত বাড়ানোর উদ্যোগ নিচ্ছি। রপ্তানিমুখী শিল্পে স্বল্পসুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ প্রদানের জন্য বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় তিনশ মিলিয়ন ডলারের একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছি। দুইশ মিলিয়ন ডলারের আরেকটি তহবিল অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।   ব্যাংকিং খাত শক্তিশালী কি-না তার অন্যতম পরিমাপক হচ্ছে মূলধন পর্যাপ্ততা এমন মন্তব্য করে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বলেন, ব্যাংকিং খাতে বর্তমানে মূলধন পর্যাপ্ততার হার ১০ দশমিক ৫৩ শতাংশ। যা আন্তর্জাতিক মানদণ্ড ৮ শতাংশের চেয়ে অনেক বেশি। বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন খুবই প্রাণোদীপ্ত ও স্থিতিশীল এমন মন্তব্য করে গভর্নর বলেন, বাংলাদেশ সফরে এসে প্রথিতযশা বাঙালি অর্থনীতিবিদ এবং বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. কৌশিক বসু বলেছেন, বাংলাদেশে অর্থনীতি এখন উড়ন্ত সূচনার পর্যায়ে রয়েছে। ব্যাংকিং খাতের সূচকগুলো দিন দিনই শক্তিশালী হচ্ছে। ব্যাংকিং খাত এখন অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে শক্তিশালী, স্থিতিশীল ও ঝুঁকিসহনে সক্ষম।

Share Button
More from অর্থনীতিMore posts in অর্থনীতি »